লিয়াকত হত্যায় আ’লীগ নেতা ও আউড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান প্রধান আসামি 

নড়াইল প্রতিনিধি :: নড়াইলে বাস চালক লিয়াকত সিকদার (৫২) হত্যায় আউড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও ওয়ার্ড আ’লীগ সভাপতি পলাশ মোল্যাকে প্রধান আসামি করে মামলা হয়েছে। রোববার (২৯ আগস্ট) রাত সাড়ে ১১টার দিকে নিহতের স্ত্রী জ্ঞাত ১৭জন এবং ৩-৪জন অজ্ঞাত আসামির বিরুদ্ধে সদর থানায় এ হত্যা মামলা করেন।
মামলার বাদি নিহতের স্ত্রী আসমা খাতুন জানান, স্থানীয় আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে। তিনি এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেন।
জানা গেছে, গত শনিবার রাত ৮টার দিকে নড়াইল-লোহাগড়া সড়কের পার্শ্বে নড়াইল শহর সংলগ্ন সীমাখালী এলাকায় লিয়াকতের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তবে লাশ যেখানে পড়ে ছিল সেখানে কোনো রক্তের চিহৃ ছিলনা। অন্য কোথাও হত্যা করে ওই স্থানে লাশ ফেলে রাখা হয়। ঘটনার ১ ঘন্টা আগে লিয়াকত বাড়ি থেকে ১ মাইল দূরে নাকসি বাজারে স্থানীয় ১০-১২ জনকে সাথে নিয়ে চা খাচ্ছিলেন। লিয়াকত সীমাখালী ফেরী ঘাট এলাকার সোহরাব সিকদারের পূত্র।
নড়াইল সদর থানার ওসি শওকত কবির জানান, হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের স্ত্রী বাদি হয়ে মামলা করেছেন। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এলাকার পরিবেশ শান্ত রয়েছে। যে কোনো প্রকার সহিংসতা এড়াতে পুলিশ সতর্ক রয়েছে।
এ ব্যাপারে আউড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি পলাশ মোল্যার সাথে কথা বলার জন্য তার দুটি মোবাইলে ফোন দিলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। #