বনদস্যু মুক্ত সুন্দরবনে বাঘের আনাগোনা বৃদ্ধি

সুন্দরবনে বাঘের হামলা থেকে রক্ষা পেল মৌয়াল
সুন্দরবনে বাঘের হামলা থেকে রক্ষা পেল মৌয়াল

জিয়াউর রহমান (শ্যামনগর) প্রতিনিধি :: সাতক্ষীরা রেঞ্জ পশ্চিম সুন্দরবনে সাম্প্রতিক সময়ে হিং বাঘের আনাগোনা ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে। সাতক্ষীরা রেঞ্জের আওতায় ১৩টি কম্পার্টমেন্টের ৮৬ হাজার বর্গকিলোমিটার জুড়ে বাঘের আনাগোনা অনেক বেশি বন বিভাগের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।
উপকূলীয় মুন্সিগঞ্জ গ্রামে পেশাদার মৌয়াল সিরাজ, মিজান বুড়িগোয়ালিনী গ্রামে আবুল হায়াত, হাকিম এবং গাবুরা গ্রামের ফিরোজ ও মাসুম সম্প্রতি সুন্দরবন হতে মধু আহরণ শেষে বাড়িতে ফিরে জানান, বাঘের ভয়ে মধু আহরণ অধিক ঝুকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। এত বেশি বাঘের আনাগোনা বিগত ১০ বছরেও পরিলক্ষিত হয়নি। সুন্দরবনে বনদস্যু না থাকায় বাঘের আনাগোনা বৃদ্ধি পেয়েছে মৌয়ালদের অভিমত।
সাতক্ষীরা সহকারী বনসংরক্ষক (এসিএফ) এম হাসান বাঘ বৃদ্ধির সত্যতা স্বীকার করে বলেন বর্তমান সময় সুন্দরবনে বনদস্যুর অপতৎপরতা না থাকায় বাঘের আনাগোনা বৃদ্ধি পেয়েছে। ইতিপূর্বে বনদস্যুর দলগুলো বাঘের উপরে অত্যাচার করায় বাঘের আনাগোনা কম ছিল। তাছাড়া প্রচুর পরিমাণে খাদ্য থাকায় বাঘের চলাফেরা বৃদ্ধি পেয়েছে।

উল্লেখ্য বিগত ৫০ দিনের মধ্যে সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে ২ জন মৌয়াল প্রাণ হারায়। এ সময় আহত হয় ৩ জন মৌয়াল।চলতি বছর সাতক্ষীরা রেঞ্চে মধু আহরণের লক্ষ্য মাত্রা ১ হাজার ৬৫ কুইন্টাল এবং মৌ ২৬৫ কুইন্টাল। প্রতি কুইন্টাল মধু আহরণের জন্য রাজস্ব ৭৫০ টাকা। এবং মৌ ১০০০ টাকা নির্ধারিত আছে। #