ফাইনালে আর্জেন্টিনা

 নিউজথ্রি ::   কোপা আমেরিকা ফুটবল টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সেমিফাইনাল ম্যাচটি নির্ধারিত সময়ের ১-১ গোল ব্যবধানে ড্র হলে ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। এরপর তিনটি পেনাল্টি শুট রুখে দেন আর্জেন্টাইন গোলকিপার মার্টিনেজ। টাইব্রেকারের রোমাঞ্চ শেষ কলম্বিয়াকে ৩-১ গোলে হারিয়ে ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ হিসেবে ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করল লিওনেল মেসি বাহিনী।

নির্দ্বিধায় এ ম্যাচের জয়ের নায়ক আর্জেন্টাইন গোলকিপার। কেননা দুদলই প্রথম শটে গোল পেলেও এরপর কলম্বিয়ার ফুটবলারদের সামনে দেয়ালের মতো আবির্ভাব ঘটে মার্টিনেজের। পরপর দুটি শট রুখে দিলে দুদলের চারটি করে শট শেষে এক সময় ব্যবধান ৩-২। কলম্বিয়ার পঞ্চম শটটিও হয়নি গোল। এটাও আটকে দেন মার্টিনেজ। আর তাতেই শেষ কিক আর করতে হয়নি কোপা আমেরিকার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ শিরোপাজয়ীদের।

আগে প্রথম সেমিফাইাল ম্যাচে নিজেদের কাজটুকু যথার্থই করেছে ব্রাজিল জাতীয় ফুটবল দল। পেরুকে ১-০ গোল ব্যবধানে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে কোপার আমেরিকার ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে নেইমাররা। এরপর থেকেই সবার চোখ আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়া ম্যাচে। মেসিরা জিততে পারলেই আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল মধ্যকার এক রোমাঞ্চকর ফাইনাল ম্যাচই খেলতে পারবে ফুটবলবিশ্ব।

জয়ের উদ্দেশ্যে বুধবার সকালে কলম্বিয়ার বিপক্ষে খেলতে নামে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা আর্জেন্টিনা। এদিন ম্যাচের শুরু থেকেই মেসিরা দেখিয়েছে যাচ্ছেন দাপুটে খেলা। আর সেই সুবাদে মাত্র সপ্তম মিনিটেই মাথায় গোল পেয়ে যায় দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

এ সময় প্রতিপক্ষের ডি-বক্সে বল পেয়ে দুজনকে কাটিয়ে সতীর্থ লাওতারো মার্টিনেজের উদ্দেশ্যে বল ছাড়েন মেসি। সুযোগ সন্ধানী মার্টিনেজ করেননি কোনো ভুল। বক্সের মাঝামাঝি বল পেয়ে ডান পায়ের দুর্দান্ত এক শটে কলম্বিয়ার জাল কাঁপিয়ে দেন মার্টিনেজ।

এরপর প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত দুদলই বেশ কয়েকটি গোলের সুযোগ পেয়েছিল। কিন্তু কাজে আসেনি। ফলে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই প্রথমার্ধ শেষ করে স্কালোনি এন্ড কোং।

দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচে ফিরেই গোলের জন্য মরিয়া হয়ে উঠা কলম্বিয়া ৬১ মিনিটে সমতায় সূচক গোল পায়। এ সময় এডউইন কারদোনার পাস থেকে বল ধরে গোল পোস্টের বাম পাশে নিয়ে আসেন দিয়াজ। আর্জেন্টিনা ডিফেন্ডার পেজেল্লা সঙ্গে থেকে ফেরানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হলেন। গোলরক্ষক মার্টিনেজের ওপর দিয়ে আলতো টোকায় আর্জেন্টিনার জালে বল জড়িয়ে দেন দিয়াজ। এরপর আরো কোনো গোল না হলে ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। #