চৌগাছায় গ্রামীণ পাকা সড়কেরর যথেচ্ছ ব্যবহার

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি :: চৌগাছায় গ্রামীণ পাকা সড়কগুলো এক শ্রেনীর সুবিধাভোগী লোকজন তাদের ইচ্ছামত ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ। মাঠের ফসল তুলে সড়কে রাখা, বাড়ি নির্মানে ইট, বালু, খোয়া সড়কে রাখাসহ নানা ভাবে সড়ক দখলে রেখে কাজ করা যেন নিয়মে পরিনত হয়েছে, ফলে সড়কে দূর্ঘটনা লেগেই আছে। তদন্তপূর্বক দখলকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসি।
বর্তমানে বোরো ধান কাটা ও মাড়াই করার ভরা মৌসুম চলছে। কাঠফাটা রোদে কৃষক মাঠ থেকে ধান শুকিয়ে তা বাড়িতে এনে মাড়াই করছেন। একদিকে চলছে ধান গোলা বা বস্তা ভরার কাজ অন্যদিকে চলছে বিচেলী (গো-খঅদ্য) গাদা দেয়ার কাজ। কিন্তু ধান ঝাড়ার পর এক ধরনের পল তৈরী হয় যা রোদে শুকানোর পর সেখান থেকেও বেশ ধান পাই কৃষক কৃষানী। এলাকা বিশেষ এই পলকে নানা ধরনের নামে ডাকলেও এই অঞ্চলের কৃষকরা ওই পলকে আলসে বলেন। বর্তমানে চৌগাছার অধিকাংশ গ্রামীণ পাকা সড়কগুলো বলাচলে অঘোষিত ভাবে ওই আলসের দখলে চলে গেছে। সড়কের পাশ দিয়ে বসবাসকারী অধিকাংশ কৃষক পাকা সড়কে আলসে নেড়ে দিয়ে চলাচলের বিঘœসৃষ্টি করছেন। এ সব সড়ক দিয়ে ভ্যান, বাইসাইকেল, মটরসাইকেল, ইজিবাইক, থ্রি-হুইলারসহ ছোটখাটো যানবাহন নিয়মিত চলাচল করে। সড়কের উপর আলসে নেড়ে দেয়ায় তা অতি সহজে বাহন গুলোর চাকাতে জড়িয়ে যাচ্ছে ঘটছে দূর্ঘটনা। প্রায় ৬/৭ বছর আগে এমনই এক সুবিধাভোগী ব্যাক্তির কারনে চৌগাছায় একটি পিকনিক বাস দূর্ঘটনার কবলে পড়ে ৯ শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়। ওই ব্যাক্তি পাকা সড়কে লাল ডাটা নেড়ে দিয়ে রোদে শুকানোর চেষ্টা করছিল। এরপর থেকে উপজেলার সড়কগুলোতে কোন কিছু বিছিয়ে রাখা সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু সম্প্রতি আবারও সেই দৃশ্য ব্যাপক আকার ধারন করেছে।
গতকাল উপজেলার নারায়নপুর, স্বরুপদাহ ও সুখপুকুরিয়া ইউনিয়নের বেশ কিছু গ্রাম ঘুরে এই দৃশ্য চোখে পড়ে। এ সময় সড়কে আলসে নেড়ে দেয়ার কাজে ব্যস্ত এক কৃষানীর কাছে জানতে চাইলে তিনি নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, পরিবারে লোক সংখ্যা বেড়ে গেছে, উঠানে আগের মত আর জায়গা নেই তাই সড়কেই আলসে নেড়েছি। দু’একদিন পরেই আলসে থেকে ধান বের করে রাস্তা পরিস্কার করে দিবো।
সড়কে ভ্যান চালক জাকির হোসেন, পথচারী আব্দুল হালিম জানান, পাকা রাস্তায় এ ভাবে পল নেড়ে দেয়ায় চলাচল করা ঝুকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। পল সব ধরনের যানবাহনের চাকায় জড়িয়ে যাচ্ছে আর দূর্ঘটনা ঘটছে। স্থানীয়রা জানান, এক শ্রেনীর অসাধু ব্যাক্তি বছরের বেশির ভাগ সময় সরকারী পাকা সড়ক দখলে নিয়ে নিজেদের কাজ করেন। ফসল সড়কে নেড়ে দেয়া, বাড়ি নির্মান করতে যেয়ে ইট বালু খোয়া সড়কের উপর রাখা তাদের কাছে যেন নিয়মে পরিনত হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে সড়ক দখল করে চলাচলে বিঘœ সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসি। #