কালীগঞ্জে ক্লিনিক থেকে চুরি হওয়া নবজাতক উদ্ধার, নারী আটক

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি :: ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ শহরের সেবা ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনোস্টিক সেন্টার থেকে চুরি হওয়া নবজাতক কন্যা শিশুকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব।  মঙ্গলবার সকালে শহরের নিশ্চিন্তপুর দাসপাড়া থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় পিয়া নামের এক নারীকে আটক করা হয়েছে। সে ঢাকালে পাড়ার কথিত সাংবাদিক জাহাঙ্গীর হোসেনের স্ত্রী।  সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে সেবা ক্লিনিক থেকে শিশুটিকে চুরি করে নিয়ে যাওয়া হয়। ঘটনার ১৬ ঘন্টা পর র‌্যাব শিশুটিকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছেন।  কন্যা নবজাতকটি শহরের বলিদাপাড়ার গ্রামের মনিরুল ও শাবানা বেগম দম্পতির সন্তান।  নবজাতক শিশুটি উদ্ধারের পর তার বাবা-মায়ের কাছে হস্তান্তর করেছে র‌্যাব।
ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬ এর কোম্পানী কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামাল উদ্দিন জানান, সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে সেবা ক্লিনিক থেকে চুরি হওয়া নবজাতকটি নিশ্চিন্তপুর এলাকা থেকে মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় নবজাতকটি পিয়া নামে এক নারীর কাছে পাওয়া যায়। ওই নারীকে আটক করে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।
সেবা ক্লিনিকের মালিক আব্দুর রশিদ জানান, সোমবার সকালে বলিদাপাড়া গ্রামের ইজিবাইক চালক মনিরুল ইসলামে স্ত্রী সাবানা বেগমের প্রসব যন্ত্রনা শুরু হলে তাকে ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। দুপুর তিন টার দিকে ডা: প্রবীর কুমার ও ডা: প্রফুল্ল কুমার মজুমদার সিজারের মাধ্যমে একটি কন্যা শিশু ভুমিষ্ট করেন। সিজারের পর মা ও মেয়ে দু’জনই সুস্থ ছিল। এরপর তাদের ক্লিনিকের দ্বিতীয় তলার ২০৩ নং কেবিনে রাখা হয়। সন্ধ্যায় ইফতার শেষে নামাজ পড়তে যাওয়ার সময় শিশুটির নানী ক্লিনিকের লোক মনে করে অপরিচিত এক নারীর কাছে বাচ্চাটি রেখে নামাজ পড়তে গেলে সে বাচ্চাটি কে  নিয়ে পালিয়ে যায়।

কালীগঞ্জ থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মুহাঃ মাহফুজুর রহমান জানান, এ ঘটনায় সোমবার রাতেই শিশুটির পিতা মনিরুল ইসলাম বাদি হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করে থানায় একটি অপহরণ মামলা করেছেন। তিনি আরো বলেন, শিশুটিকে র‌্যাব নিশ্চিন্তপুর থেকে উদ্ধার করেছে।  নবজাতকটি প্রিয়া নামের এক নারীর কাছে পাওয়া যাওয়ায় তাকে আটক করা হয়েছে। সে ঢাকালে পাড়ার বাসিন্দা ও শ্যামবাজার পত্রিকার সাংবাদিক জাহাঙ্গীর হোসেনের স্ত্রী। #