করোনার প্রভাব ব্যবসায় :  ঘুড়িই যেন শেষ ভরসা চৌগাছার ইউছুপ আলীর

চৌগাছা (যশোর)  থেকে :: মহামারি করোনায় সব কিছুই যেন এলোমেলো হয়ে গেছে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ইউছুপ আলীর। এক সময়ের রমরমা নেটওয়ার্ক ও স্টুডিও ব্যবসা এখন চলছে খুড়িয়ে খুড়িয়ে। তাই সংসারের চাকা সচল রাখতে মুল ব্যবসার পাশাপাশি ঘুড়ি বিক্রি করছেন।
চৌগাছা-যশোর সড়কে রুমানা বেকারীর পাশে ইউছুপ নেটওয়ার্ক এন্ড ডিজিটাল স্টুডিও। বছরের পর বছর তিনি এই ব্যবসা করে সংসার চালাতেন, পরিবার পরিজন নিয়ে বশে সুখেই ছিলেন। ২০২০ সালে মহামারি করোনা ভাইরাস হানা দিলে ধীরে ধীরে ব্যবসায় মন্দা ভাব দেখা দেয়। এরপার আসে লকডাউন। সেই ধাক্কা কাটিয়ে পুনরায় ব্যবসায় সুদিন আসবে এমন অপেক্ষায় প্রহর গুনতে থাকেন। কিন্তু আবারও করোনার হানা, চলছে লকডাউন, ব্যবসা নেই বললেই চলে। তাই বাধ্য হয়ে পরিবার পরিজনের মুখে দুবেলা দু’মুঠো ভাত তুলে দিতে ঘুড়ি বিক্রি শুরু করেছেন বলে জানান দোকান মালিক ইউছুপ আলী।

তিনি আরও বলেন, করোনায় তার সব কিছুই যেন এলোমেলো করে দিয়েছে। এরমধ্যে এক এনজিও’র রোষানলে পড়ে তিনি অর্থনৈতিক ভাবে আরও ক্ষতিগ্রস্থ্য হয়েছেন। বাধ্য হয়ে মুল ব্যবসার পাশাপাশি ঘুড়ি বিক্রি করে পরিবার পরিজন নিয়ে বেঁচে থাকার চেষ্টা করছি। তার বিক্রি করা ঘুড়ির মধ্যে ঈগল ঘুড়ি প্রকার ভেদে ১৪০ হতে ২৪০ টাকা, প্লাষ্টিক প্রজাপতি ঘুড়ি ৪০ টাকায় বিক্রি করছেন। এছাড়া ডরিমন, মটুপাটলু, সেবাগ, চিলে ঘুড়িসহ নানা ধরনের ঘুড়ি ভিন্ন ভিন্ন দরে তিনি বিক্রি করছেন বলে জানান। #